ঢাকা ১৮ জুলাই, ২০২৪
সংবাদ শিরোনাম
মেরুল বাড্ডায় শিক্ষার্থীদের অবস্থান, যানচলাচল সম্পূর্ণ বন্ধ ত্রিমুখী সংঘর্ষে রণক্ষেত্র যাত্রাবাড়ী শিক্ষার্থী শূন্য জাবির হল, ক্যাম্পাসে বিদ্যুৎ-পানি-ইন্টারনেট বন্ধ বেরোবি শিক্ষার্থী আবু সাঈদ নিহতের ঘটনায় তদন্ত কমিটি যাত্রাবাড়ীতে পুলিশ-শিক্ষার্থী সংঘর্ষ, ২ পথচারী গুলিবিদ্ধ ১৪ দলের সঙ্গে আ.লীগের মতবিনিময় সভা স্থগিত শাটডাউনকে পুঁজি করে সহিংসতা সহ্য করা হবে না: কাদের আশুলিয়ায় পোশাক কারখানায় ভয়াবহ আগুন ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়ক বন্ধ, ভোগান্তিতে মানুষ নির্মাণাধীন ভবনের দশতলা থেকে পড়ে শ্রমিক নিহত

রিয়াদের সামনে স্লগের পরীক্ষা

#

ক্রীড়া প্রতিবেদক

১৮ সেপ্টেম্বর, ২০২৩,  1:23 PM

news image

নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে হোম সিরিজের দলে ব্যাপক রদবদলে গুঞ্জনের ডালপালা মেলেছে। বেশ কয়েকজন সিনিয়র ক্রিকেটারকে ঘোষিত দলে রাখায় ক্রিকেট অনুরাগীরা সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে মুখরোচক আলোচনার সুযোগ পেয়ে গেছেন। কেউ কেউ তো বিশ্বকাপ দলে বড় পরিবর্তনের সুযোগ দেখছেন। মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ, সৌম্য সরকার, এনামুল হক বিজয়দের পক্ষে-বিপক্ষে কথা হচ্ছে। কিন্তু বাস্তবতা হলো বিশ্বকাপ দলে বড় কোনো পরিবর্তনের সুযোগ নেই। মূলত একটি জায়গার জন্য লড়াই হবে মাহমুদউল্লাহ ও সৌম্য সরকারের মধ্যে। কারণ বিশ্বকাপ দলের বাকি ১৪ জন ঠিক হয়ে আছে। ক্রিকেটারদের চোট মুক্ত রাখতে নিয়মিত দলের ছয়জনকে বিশ্রাম দিয়েছে বিসিবি। অধিনায়ক সাকিব আল হাসান, মুশফিকুর রহিম, মেহেদী হাসান মিরাজ, তাসকিন আহমেদ, হাসান মাহমুদ, শরিফুল ইসলামকে কিউইদের বিপক্ষে প্রথম দুই ম্যাচের দলে রাখা হয়নি। লিটন কুমার দাসের নেতৃত্বে তামিম ইকবালরা ভালো করলে শেষ ম্যাচেও হয়তো খেলবেন না তারা। মূলত এই ছয় ক্রিকেটারের শূন্যস্থান পূরণ করতে পুল থেকে ক্রিকেটার নেওয়া হয়েছে। যেখানে এনামুল হক বিজয়, নুরুল হাসান সোহানকে নেওয়া হয়েছে। এভাবে বিশাল পরিবর্তনের কারণ সম্পর্কে জানতে চাওয়া হলে বিসিবি ক্রিকেট পরিচালনা বিভাগের চেয়ারম্যান জালাল ইউনুস বলেন, ‘বিশ্বকাপ ভাবনা, বর্তমান বাস্তবতা ও ভবিষ্যৎ মাথায় রেখে নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে কিছু ক্রিকেটারকে সুযোগ দেওয়া হয়েছে। বিশেষ করে পাঁচ-ছয়জন খেলোয়াড়কে বিশ্রাম দেওয়ায় তাদের জায়গায় কাউকে না কাউকে তো নিতে হতো। নির্বাচকরা সেদিক থেকে অভিজ্ঞ ক্রিকেটারদের নিয়েছেন। আর পেস বোলারদের বিশ্রাম দেওয়া খুবই প্রয়োজন ছিল। প্রায় সব দেশের পেস বোলাররা চোটে পড়ছে। বিশ্বকাপ অনেক লম্বা জার্নি, দেড় মাসের মতো খেলতে হবে। রোটেশন করে ম্যাচ খেলাতে হবে ওয়ার্কলোড ম্যানেজ করতে। এ কারণে বিশ্রাম দেওয়া এবং বিকল্প ক্রিকেটারদের দলে নেওয়া। টুর্নামেন্ট চলাকালেও তো খেলোয়াড় নেওয়ার প্রয়োজন পড়তে পারে।’ এশিয়া কাপে তরুণদের অনেকে ভালো করতে পারেননি। আফিফ হোসেন, শামীম হোসেন পাটোয়ারি, নাঈম শেখকে আপাতত জাতীয় দলের ভাবনাতে রাখা হয়নি। বিশ্বকাপ পরিকল্পনায় নেই তিনজনের কেউই। নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে হোম সিরিজের দলে রাখা হলেও আরেক ওপেনার এনামুল হক বিজয়কে নিয়েও চিন্তা করছেন না নির্বাচকরা। তবে ওপেনার জাকির হাসানের ওপর চোখ থাকবে টিম ম্যানেজমেন্টের। বিশেষ করে বিকল্প ওপেনার প্রস্তুত রাখা জরুরি মনে করেন নির্বাচকরা। কারণ তামিম ইকবাল কোমরের ইনজুরি থেকে ফিরলেও টানা ম্যাচ খেলতে পারবেন, সে নিশ্চয়তা নেই। কোচ চন্ডিকা হাথুরুসিংহে এ জন্যই হয়তো সৌম্যর ব্যাপারে আগ্রহ দেখাচ্ছেন। ‘এ’ দলের হয়ে ইমার্জিং এশিয়া কাপে পাঠানো, বাংলাদেশ টাইগার্সের হয়ে ম্যাচ খেলানো এবং কিউইদের বিপক্ষে ১৫ জনের দলে রাখার পেছনেও কোচের হাত রয়েছে। এ ছাড়া এশিয়া কাপে তরুণরা ভালো করতে না পারায় অভিজ্ঞ মাহমুদউল্লাহর বিশ্বকাপ খেলার সম্ভাবনা উজ্জ্বল হয়েছে। তবে মাহমুদউল্লাহ বা সৌম্যকে ইতিবাচক ব্যাটিং করে ভালো খেলে জাতীয় দলে ফিরতে হবে। এ ব্যাপারে জালাল ইউনুসের মত হলো, ‘সব কিছু নির্ভর করবে পারফরম্যান্সের ওপর। কেউ ভালো রান করলে গুরুত্ব দেওয়া হবে। পরীক্ষিত পারফরমাররা আছে। নতুনদেরও দেখা হচ্ছে। এমন না যে শুধু বিশ্বকাপ ভাবনা থেকে এখানে ক্রিকেটার নেওয়া  হয়েছে। বিশ্বকাপের পর অনেক খেলা আছে। সেখানে খেলোয়াড় দরকার পড়বে। আমরা চাই নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে ভালো ক্রিকেট খেলা হোক।’ যেভাবেই দেখা হোক না কেন, ছয়জন নিয়মিত খেলোয়াড়কে বিশ্রামে রেখে কিউইদের বিপক্ষে বিকল্পা দল খেলানোর সিদ্ধান্ত বিসিবির সাহসী উদ্যোগ বলতে হবে।

logo

সম্পাদক ও প্রকাশক : মো. নজরুল ইসলাম