ঢাকা ২৫ ফেব্রুয়ারি, ২০২৪
সংবাদ শিরোনাম
মার্কেটে হামলা ভাংচুর-লুটপাট, বিচার চেয়ে ভুক্তভোগীদের মানববন্ধন বিক্ষোভ সমগ্র গ্রামবাংলার ঘরে ঘরে বিদ্যুৎ পৌঁছে দিয়েছি : প্রধানমন্ত্রী পিলখানার চূড়ান্ত বিচার দ্রুত শেষ হবে : স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আজ পবিত্র শবেবরাত যারা সরকার পরিবর্তন করতে চায়, দ্রব্যমূল্য বৃদ্ধিতে তারা যুক্ত: পররাষ্ট্রমন্ত্রী আন্দোলনের জন্য দল গুছিয়ে বিএনপির কোনো লাভ নেই: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী পশুর নদীতে কয়লাবোঝাই কার্গো জাহাজডুবি কালীগঞ্জে বিদ্যুৎস্পৃষ্ট হয়ে স্কুলছাত্রের মৃত্যু দেশের রাজনীতি নষ্ট করবেন না, সরকারের উদ্দেশে জিএম কাদের হৃদরোগের ঝুঁকি কমায় বেদানা

যুদ্ধাপরাধ : শেরপুরের ৩ জনের আমৃত্যু কারাদণ্ড

#

নিজস্ব প্রতিবেদক

১২ ফেব্রুয়ারি, ২০২৪,  11:54 AM

news image

মুক্তিযুদ্ধের সময় মানবতাবিরোধী অপরাধের অভিযোগের মামলায় শেরপুর জেলার নকলা উপজেলার তিনজনকে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড দিয়েছেন ট্রাইব্যুনাল। আসামিরা হলেন– আমিনুজ্জামান ফারুক, মোখলেসুর রহমান ওরফের তারা ও এ কে এম আকরাম হোসেন। সোমবার (১২ ফেব্রুয়ারি) চেয়ারম্যান বিচারপতি মো. শাহিনুর ইসলামের নেতৃত্বে তিন সদস্যের আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনাল এ রায় দেন। আদালতে আসামিপক্ষে ছিলেন আইনজীবী আবদুস সোবহান তরফদার ও আবদুস সাত্তার পালোয়ান। প্রসিকিউশন পক্ষে ছিলেন প্রসিকিউটর রেজিয়া সুলতানা চমন। গত রোববার (৪ ফেব্রুয়ারি) মুক্তিযুদ্ধের সময় মানবতাবিরোধী অপরাধের অভিযোগের মামলায় শেরপুর জেলার নকলা উপজেলার তিনজনের বিরুদ্ধে রায়ের জন্য আজকের দিন ধার্য করা হয়। চেয়ারম্যান বিচারপতি মো. শাহিনুর ইসলামের নেতৃত্বে তিন সদস্যের আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনাল রায়ের জন্য এ দিন ধার্য করেন। গত ২৪ জানুয়ারি শুনানি শেষে রায়ের জন্য অপেক্ষমান (সিএভি) রেখেছিলেন। নকলার চারজনের বিরুদ্ধে একাত্তরে মানবতাবিরোধী অপরাধের অভিযোগ তদন্ত করে ২০১৭ সালের ২৬ জুলাই প্রতিবেদন দাখিল করে আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনালের তদন্ত সংস্থা। একই বছরের ৩১ অক্টোবর ট্রাইব্যুনালে ফরমাল চার্জ দাখিল করা হয়। ২০১৮ সালের ৩০ আগস্ট আসামিদের বিরুদ্ধে চারটি অভিযোগে চার্জ গঠন করে বিচার শুরুর আদেশ দেন আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনাল। চার আসামির মধ্যে বিচার চলাকালে একজন আসামি এমদাদুল হক খাজা মারা যান। কারাগারে থাকা তিন আসামি হলেন– আমিনুজ্জামান ফারুক, মোখলেসুর রহমান ওরফের তারা ও এ কে এম আকরাম হোসেন।

logo

সম্পাদক ও প্রকাশক : মো. নজরুল ইসলাম