ঢাকা ২০ মে, ২০২৪
সংবাদ শিরোনাম
বাজেট অধিবেশন শুরু ৫ জুন নিপুণের পেছনে বড় শক্তি আছে : ডিপজল ইরানের প্রেসিডেন্টের মৃত্যুতে রাষ্ট্রপতি ও প্রধানমন্ত্রীর শোক কলাপাড়ায় মাসব্যাপী তাঁত শিল্প মেলা শুরু নো হেলমেট নো ফুয়েল বাস্তবায়নে রংপুর জেলা পুলিশের বিশেষ উদ্যোগ ইরানে পাঁচ দিনের রাষ্ট্রীয় শোক ঘোষণা বাবুবাজারে বিদ্যুৎস্পৃষ্টে ব্যবসায়ীর মৃত্যু চান্দিনায় ট্রাকচাপায় মোটরসাইকেলের ২ আরোহী নিহত ব্যাটারিচালিত রিকশা চালু রাখার নির্দেশ প্রধানমন্ত্রীর দুই ইলিশের দাম ১৪ হাজার টাকা

জামালপুরের মতো ডিসিদের দিয়ে ‘ক্রেডিবল’ নির্বাচন হবে না

#

নিজস্ব প্রতিবেদক

১৩ সেপ্টেম্বর, ২০২৩,  1:56 PM

news image

জামালপুরের ডিসি ইমরান আহমেদ (বাঁয়ে) ও সাবেক নির্বাচন কমিশনার ব্রিগেডিয়ার জেনারেল (অব.) এম সাখাওয়াত হোসেন নির্বাচন কমিশনারদের উদ্দেশে সাবেক নির্বাচন কমিশনার ব্রিগেডিয়ার জেনারেল (অব.) এম সাখাওয়াত হোসেন বলেছেন, জামালপুরের মতো ডিসিদের বিরুদ্ধে আপনাদের সিদ্ধান্ত নিতে হবে। জামালপুরের ডিসি বলেছেন আওয়ামী লীগ সরকারকে ক্ষমতায় আনতে হবে। এই খবর সব পেপারে দেখলাম। এদের দিয়ে ক্রেডিবল (বিশ্বাসযোগ্য) নির্বাচন হবে না।  আজ (বুধবার) দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনকে সামনে রেখে বুধবার নাগরিক সমাজ, সাংবাদিক, অধ্যাপক, নির্বাচন বিশেষজ্ঞদের নিয়ে বসে নির্বাচন কমিশন (ইসি)। ‘দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন : প্রত্যাশা ও বাস্তবতা’ প্রতিপাদ্যে আলোচনা ও পর্যালোচনামূলক সভায় তিনি এসব কথা বলেন। গেল সোমবার জামালপুরে এক অনুষ্ঠানে ডিসি ইমরান আহমেদ বলেন, এই সরকার যে উন্নয়ন করেছে সেটির ধারা অব্যাহত রাখার জন্য এই সরকারকে আবার নির্বাচিত করে ক্ষমতায় আনতে হবে। এটা হবে আমাদের প্রত্যেকের অঙ্গীকার। তার এই বক্তব্যের ভিডিও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়লে তা নিয়ে সমালোচনা হয়। গতকাল বিকেলে ডিসির এ বক্তব্যের বিষয়ে জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী ফরহাদ হোসেনের দৃষ্টি আকর্ষণ করা হলে তিনি বলেন— নির্বাচন সামনে রেখে একজন ডিসি এমন কথা বলতে পারেন না। তাদেরকে নানা ধরনের প্রশিক্ষণ দিয়ে মাঠে পাঠানো হয়। নির্বাচন নিয়ে ডিসি ভিডিওতে যা বলেছেন তা খতিয়ে দেখা হবে। নির্বাচন কমিশনারদের উদ্দেশ্য সাবেক কমিশনার বলেন, এসব ডিসিদের বিরুদ্ধে আপাদের সিদ্ধান্ত নিতে হবে কী করবেন। কীভাবে কাজ করবেন। এক জেলায় চারজন রিটার্নিং কর্মকর্তা দিয়ে নির্বাচন করাতে পারবেন। একই ডিসিদের রিটার্নিং করাতে হবে বিষয়টি এমন নয়। সাবেক নির্বাচন কমিশনার বলেন, কয়েকদিন আগে মালদ্বীপে ভোট হয়েছে, বড় বড় অবজারভার সেখানে ছিল। আপনাদের হাত পা বেঁধে সমুদ্রে ফেলে দেয়া হয়েছে। আপনারা একা সিদ্ধান্ত নেবেন। কোনো পলিটিক্যাল পার্টির কথা শুনবেন না। অতীত ভুলগুলো শুধরাবেন।  তিনি আরও বলেন, আমি বার বার বলছি ভোটে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীকে নিয়োগ নিয়ে। ঢাকায় দেখলাম একটা প্রার্থীকে মারা হলো এটা কীভাবে হলো। পলিটিক্যাল পার্টি সেন্টার পাহারা দেয়। কার ভোটার কে এরা জানে? প্রত্যেক সেন্টারে পাহারা দেয়। এদের শনাক্ত করে পদক্ষেপ নিতে হবে।  

logo

সম্পাদক ও প্রকাশক : মো. নজরুল ইসলাম